Dhaka 6:53 am, Sunday, 5 February 2023

সংখ্যালঘু সুরক্ষা আইন কমিশন গঠনের দাবীতে রাজবাড়ীতে অবস্থান কর্মসূচি

সংবাদদাতা-
  • প্রকাশের সময় : 07:02:07 pm, Saturday, 7 November 2020
  • / 1499 জন সংবাদটি পড়েছেন

জনতার আদালত অনলাইন ॥দিনাজপুরের পার্বতীপুর ও কুমিল্লার মুরাদনগরে সংখ্যালঘুর ওপর হামলার প্রতিবাদ এবং সংখ্যালঘু সুরক্ষা আইন প্রনয়ন, জাতীয় সংখ্যালঘু কমিশন ও মন্ত্রণালয় গঠনের দাবীতে রাজবাড়ীতে অবস্থান কর্মসূচি পালিত হয়েছে।

শনিবার বেলা ১১ টার দিকে রাজবাড়ী প্রেসক্লাবের সামনের সড়কে হিন্দু বৈধ্য খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদ জেলা শাখার আয়োজনে এ অবস্থান কর্মসূচি পালিত হয়।

এতে বক্তব্য রাখেন, হিন্দু বৈধ্য খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদ জেলা শাখার সভাপতি গণেশ নারায়ন চৌধুরী, সাধারন সম্পাদক জয়দেব কর্মকার, হরিতলা মন্দির কমিটির সভাপতি গণেশ মিত্র প্রমূখ।

এ সময় সারাদেশে সংখ্যালঘুদের ওপর নির্যাতনের প্রতিবাদ ও তীব্র নিন্দা জানান বক্তরা। এছাড়া আওয়ামী লীগের নির্বাচনী ইস্তেহারের দেয়া প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নে সংখ্যালঘু সুরক্ষা আইন প্রনয়ন, জাতীয় সংখ্যালঘু কমিশন ও সংখ্যালঘু মন্ত্রণালয় গঠনের দাবী জানান এবং সকল ধর্মের অনুসারীদের শান্তি সম্প্রতি বজায় রাখার আহবান জানান । ১৯৭১ এর আগে এদেশে প্রায় ২৭ শতাংশ হিন্দু ছিল আর এখন আছে ৭ থেকে ৮ শতাংশ। তাই সংখ্যালঘুদের ওপর নির্যাতনকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির আওতায় আনার দাবীও জানান।

Tag :

সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন-

সংখ্যালঘু সুরক্ষা আইন কমিশন গঠনের দাবীতে রাজবাড়ীতে অবস্থান কর্মসূচি

প্রকাশের সময় : 07:02:07 pm, Saturday, 7 November 2020

জনতার আদালত অনলাইন ॥দিনাজপুরের পার্বতীপুর ও কুমিল্লার মুরাদনগরে সংখ্যালঘুর ওপর হামলার প্রতিবাদ এবং সংখ্যালঘু সুরক্ষা আইন প্রনয়ন, জাতীয় সংখ্যালঘু কমিশন ও মন্ত্রণালয় গঠনের দাবীতে রাজবাড়ীতে অবস্থান কর্মসূচি পালিত হয়েছে।

শনিবার বেলা ১১ টার দিকে রাজবাড়ী প্রেসক্লাবের সামনের সড়কে হিন্দু বৈধ্য খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদ জেলা শাখার আয়োজনে এ অবস্থান কর্মসূচি পালিত হয়।

এতে বক্তব্য রাখেন, হিন্দু বৈধ্য খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদ জেলা শাখার সভাপতি গণেশ নারায়ন চৌধুরী, সাধারন সম্পাদক জয়দেব কর্মকার, হরিতলা মন্দির কমিটির সভাপতি গণেশ মিত্র প্রমূখ।

এ সময় সারাদেশে সংখ্যালঘুদের ওপর নির্যাতনের প্রতিবাদ ও তীব্র নিন্দা জানান বক্তরা। এছাড়া আওয়ামী লীগের নির্বাচনী ইস্তেহারের দেয়া প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নে সংখ্যালঘু সুরক্ষা আইন প্রনয়ন, জাতীয় সংখ্যালঘু কমিশন ও সংখ্যালঘু মন্ত্রণালয় গঠনের দাবী জানান এবং সকল ধর্মের অনুসারীদের শান্তি সম্প্রতি বজায় রাখার আহবান জানান । ১৯৭১ এর আগে এদেশে প্রায় ২৭ শতাংশ হিন্দু ছিল আর এখন আছে ৭ থেকে ৮ শতাংশ। তাই সংখ্যালঘুদের ওপর নির্যাতনকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির আওতায় আনার দাবীও জানান।