Dhaka ০৫:৫৪ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

পাখির নিরাপদ আবাস করে চলেছেন পাপুন

সংবাদদাতা-
  • প্রকাশের সময় : ০৮:৪১:১৪ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৬ নভেম্বর ২০২০
  • / ১৩৪৩ জন সংবাদটি পড়েছেন

জনতার আদালত অনলাইন ॥ রোদ, ঝড়-ঝঞ্ঝা, বৃষ্টি-বাদলে পাখির আশ্রয় কোথায়? এসব পাখিদের নিরাপদ আবাসের কথা ভেবে নিরলস কাজ করে চলেছেন উদ্যমী এক তরুণ পাপুন সালেহীন। তিনি রাজবাড়ী পৌর শহরের সজ্জনকান্দা বড়পুল এলাকার আওয়ামী লীগ নেতা অ্যড. রফিকুস সালেহীনের ছেলে। বর্তমানে তিনি জাপানী প্রতিষ্ঠান জাইকায় কর্মরত রয়েছেন।

শুক্রবার তিনি রাজবাড়ী শহরের প্রাণকেন্দ্র রেলওয়ে ময়দানের চারপাশের গাছগুলোতে মাটির খুঁটি বেঁধে দিয়েছেন। যেখানে পাখিদের সহজে প্রবেশের জন্য একটি বড় ছিদ্র করা হয়েছে। রোদ ঝড় বৃষ্টিতে পাখিরা সেখানে আশ্রয় নিয়ে নিরাপদে থাকতে পারবে। এসময় উপস্থিত ছিলেন সাবেক জেলা শিক্ষা অফিসার সৈয়দ  সিদ্দিকুর রহমান, শিক্ষা কর্মকর্তা জয়ন্ত দাস, শিক্ষক নুরতাজ তাজিয়া, রাজবাড়ী বেসরকারি টেকরিক্যাল স্কুল এন্ড কলেজের পরিচালক আশিফ মাহমুদ, কবি নেহাল আহমেদ, রাজবাড়ী ডিবেট এসোসিয়েশনের সভাপতি ফারুক উদ্দিন প্রমুখ।

গত ১৭ অক্টোবর তারিখে তিনি রাজবাড়ী সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় চত্ত্বরের সবগুলো গাছে পাখিদের নিরাপদ আবাসের জন্য মাটির খুঁটি বেঁধেছেন।

সালেহীন পাপুন বলেন, পাখির কলকাকলি কিচিরমিচির শুনতে কে না ভালোবাসে। কিন্তু আমরা কখনই পাখিদের কথা ভাবিনা। কীভাবে তারা বাসা বাঁধে। কোথায় থাকে। রোদ ঝড় বৃষ্টিতে কী করে। এসব মুক্ত পাখিরা যেন নিরাপদে আশ্রয় নিতে পারে এজন্য আমি এ উদ্যোগ নিয়েছি। পাখিদের জন্য আরও নিরাপদ আবাস তৈরিতে যথাসম্ভব চেষ্টা করে যাবো।

Tag :

সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন-

পাখির নিরাপদ আবাস করে চলেছেন পাপুন

প্রকাশের সময় : ০৮:৪১:১৪ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৬ নভেম্বর ২০২০

জনতার আদালত অনলাইন ॥ রোদ, ঝড়-ঝঞ্ঝা, বৃষ্টি-বাদলে পাখির আশ্রয় কোথায়? এসব পাখিদের নিরাপদ আবাসের কথা ভেবে নিরলস কাজ করে চলেছেন উদ্যমী এক তরুণ পাপুন সালেহীন। তিনি রাজবাড়ী পৌর শহরের সজ্জনকান্দা বড়পুল এলাকার আওয়ামী লীগ নেতা অ্যড. রফিকুস সালেহীনের ছেলে। বর্তমানে তিনি জাপানী প্রতিষ্ঠান জাইকায় কর্মরত রয়েছেন।

শুক্রবার তিনি রাজবাড়ী শহরের প্রাণকেন্দ্র রেলওয়ে ময়দানের চারপাশের গাছগুলোতে মাটির খুঁটি বেঁধে দিয়েছেন। যেখানে পাখিদের সহজে প্রবেশের জন্য একটি বড় ছিদ্র করা হয়েছে। রোদ ঝড় বৃষ্টিতে পাখিরা সেখানে আশ্রয় নিয়ে নিরাপদে থাকতে পারবে। এসময় উপস্থিত ছিলেন সাবেক জেলা শিক্ষা অফিসার সৈয়দ  সিদ্দিকুর রহমান, শিক্ষা কর্মকর্তা জয়ন্ত দাস, শিক্ষক নুরতাজ তাজিয়া, রাজবাড়ী বেসরকারি টেকরিক্যাল স্কুল এন্ড কলেজের পরিচালক আশিফ মাহমুদ, কবি নেহাল আহমেদ, রাজবাড়ী ডিবেট এসোসিয়েশনের সভাপতি ফারুক উদ্দিন প্রমুখ।

গত ১৭ অক্টোবর তারিখে তিনি রাজবাড়ী সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় চত্ত্বরের সবগুলো গাছে পাখিদের নিরাপদ আবাসের জন্য মাটির খুঁটি বেঁধেছেন।

সালেহীন পাপুন বলেন, পাখির কলকাকলি কিচিরমিচির শুনতে কে না ভালোবাসে। কিন্তু আমরা কখনই পাখিদের কথা ভাবিনা। কীভাবে তারা বাসা বাঁধে। কোথায় থাকে। রোদ ঝড় বৃষ্টিতে কী করে। এসব মুক্ত পাখিরা যেন নিরাপদে আশ্রয় নিতে পারে এজন্য আমি এ উদ্যোগ নিয়েছি। পাখিদের জন্য আরও নিরাপদ আবাস তৈরিতে যথাসম্ভব চেষ্টা করে যাবো।