Dhaka ০২:৫৯ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মানুষের বাড়িতে খাবার পৌছে দিচ্ছেন ৩ শিক্ষার্থী । খাওয়াচ্ছেন ক্ষুধার্ত কুকুরকে

সংবাদদাতা-
  • প্রকাশের সময় : ০৭:২৭:৫৯ অপরাহ্ন, রবিবার, ৫ এপ্রিল ২০২০
  • / ১৫৫১ জন সংবাদটি পড়েছেন

জনতার আদালত অনলাইন ॥ তারা কেউ বিশ্ববিদ্যালয়ে, কেউ কলেজে পড়ে। করোনা ভাইরাস সংক্রমণের আশঙ্কায় কর্মহীন অসহায় মানুষের বাড়ি বাড়ি খাবার পৌছে দিচ্ছে তারা। খাওয়াচ্ছেন রাস্তার অভুক্ত কুকুরকেও। এ তিনজন হলেন রাজবাড়ীর পাংশা পৌর এলাকার বাসিন্দা ময়মনসিংহ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী বৃষ্টি, হলি ফ্যামিলি মেডিকেল কলেজের ছাত্র আশরাফ সিদ্দিকী ও উচ্চ মাধ্যমিক দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র আব্দুল্লাহ সাইফ ।
এ কার্যক্রমের অন্যতম উদ্যোক্ত আব্দুল্লাহ সাইফ জানান, করোনা ভাইরাস সংক্রমণের ফলে শ্রমজীবী মানুষ বেকার হয়ে পড়েছে। এ অবস্থায় তাদের পাশে দাঁড়ানো আমাদের নাগরিক কর্তব্য। আমরা তিনজন পাংশা শহরের বিত্তবান মানুষের কাছ থেকে চাঁদা তুলে তাদের মাঝে চালসহ নিত্য প্রয়োজনীয় সামগ্রী বিতরণ করছি। যাদের রান্না করার অবস্থা নেই তাদের মাঝে রান্না করা খাবার বিতরণ করছি। গত ২৯ মার্চ থেকে এ কার্যক্রম শুরু হয়েছে। এপর্যন্ত ১২০ জনের বাড়িতে চাল, ডাল, তেল, লবণ পৌছে দিয়েছি। এছাড়া রান্না করা খাবার পৌছে দিয়েছি অসংখ্য মানুষের বাড়িতে। এছাড়া পরিস্থিতির কারণে রাস্তার কুকুরগুলো এখন অভুক্ত। তাদেরকেও খাবার দেয়া হচ্ছে। যতদিন এ পরিস্থিতি থাকবে ততদিন তাদের কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে।

Tag :

সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন-

মানুষের বাড়িতে খাবার পৌছে দিচ্ছেন ৩ শিক্ষার্থী । খাওয়াচ্ছেন ক্ষুধার্ত কুকুরকে

প্রকাশের সময় : ০৭:২৭:৫৯ অপরাহ্ন, রবিবার, ৫ এপ্রিল ২০২০

জনতার আদালত অনলাইন ॥ তারা কেউ বিশ্ববিদ্যালয়ে, কেউ কলেজে পড়ে। করোনা ভাইরাস সংক্রমণের আশঙ্কায় কর্মহীন অসহায় মানুষের বাড়ি বাড়ি খাবার পৌছে দিচ্ছে তারা। খাওয়াচ্ছেন রাস্তার অভুক্ত কুকুরকেও। এ তিনজন হলেন রাজবাড়ীর পাংশা পৌর এলাকার বাসিন্দা ময়মনসিংহ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী বৃষ্টি, হলি ফ্যামিলি মেডিকেল কলেজের ছাত্র আশরাফ সিদ্দিকী ও উচ্চ মাধ্যমিক দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র আব্দুল্লাহ সাইফ ।
এ কার্যক্রমের অন্যতম উদ্যোক্ত আব্দুল্লাহ সাইফ জানান, করোনা ভাইরাস সংক্রমণের ফলে শ্রমজীবী মানুষ বেকার হয়ে পড়েছে। এ অবস্থায় তাদের পাশে দাঁড়ানো আমাদের নাগরিক কর্তব্য। আমরা তিনজন পাংশা শহরের বিত্তবান মানুষের কাছ থেকে চাঁদা তুলে তাদের মাঝে চালসহ নিত্য প্রয়োজনীয় সামগ্রী বিতরণ করছি। যাদের রান্না করার অবস্থা নেই তাদের মাঝে রান্না করা খাবার বিতরণ করছি। গত ২৯ মার্চ থেকে এ কার্যক্রম শুরু হয়েছে। এপর্যন্ত ১২০ জনের বাড়িতে চাল, ডাল, তেল, লবণ পৌছে দিয়েছি। এছাড়া রান্না করা খাবার পৌছে দিয়েছি অসংখ্য মানুষের বাড়িতে। এছাড়া পরিস্থিতির কারণে রাস্তার কুকুরগুলো এখন অভুক্ত। তাদেরকেও খাবার দেয়া হচ্ছে। যতদিন এ পরিস্থিতি থাকবে ততদিন তাদের কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে।