Dhaka ১২:৪৩ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৪, ৩০ চৈত্র ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

রাতে কম্বল নিয়ে দুস্থদের বাড়িতে বালিয়াকান্দির ইউএনও

সংবাদদাতা-
  • প্রকাশের সময় : ০৮:৪১:১১ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৪ ডিসেম্বর ২০১৯
  • / ১৪২৩ জন সংবাদটি পড়েছেন

জনতার আদালত অনলাইন ॥ চলছে শৈত্য প্রবাহ। জেঁকে বসেছে শীত। শীত নিবারণ করতে গিয়ে হিমশিম খাচ্ছে দুস্থ ও হতদরিদ্ররা। সোমবার রাত আটটার দিকে সেইসব দুস্থদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে কম্বল দিয়েছেন বালিয়াকান্দি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইশরাত জাহান।
বালিয়াকান্দি উপজেলার নবাবপুর ইউনিয়নের দিলালপুর আশ্রয়ন প্রকল্প ও বহরপুর ইউনিয়নের নিভৃত পল্লী রায়পুর গ্রামের শতাধিক দুস্থ পরিবারের বাড়ি বাড়ি গিয়ে বিতরণ করা হয় সরকারিভাবে প্রাপ্ত এসব কম্বল।
কম্বল পেয়ে হতদরিদ্র রাহেলা বেগম, আছিয়া খাতুনসহ জানান, শীতের কারণে সন্ধ্যায় ঘুমিয়ে পড়েছিলেন। রাত আটটার দিকে ঘরের বাইরে থেকে কে যেন ডাকছিল। উঠে দেখি কম্বল নিয়ে কয়েকজন হাজির। পরে জানতে পারেন ইউএনও কম্বল দিতে এসেছেন। কম্বল পেয়ে শীত নিবারণ করতে পারবো। তাদের মত গরিব মানুষের বাড়িতে কম্বল পৌছে দেওয়ার জন্য ধন্যবাদ জানান ইউএনওকে।
দিলালপুর আশ্রয়ন প্রকল্পের বাসিন্দারা জানান, আশ্রয়ন প্রকল্পটি ফাঁকা জায়গায় ও নদীর তীরে হওয়ার কারণে শীত একটু বেশি। শীতে খুব কষ্টে ছিে লন। কম্বল পেয়ে একটু হলেও শীত নিবারণ হবে।
বালিয়াকান্দি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইশরাত জাহান বলেন, প্রকৃত অর্থে দুস্থ ও হতদরিদ্ররা যাতে কম্বল পান সেজন্যই বাড়ি বাড়ি গিয়ে কম্বল বিতরণ করেছেন। এ ধারা অব্যাহত থাকবে বলে জানান তিনি।

Tag :

সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন-

রাতে কম্বল নিয়ে দুস্থদের বাড়িতে বালিয়াকান্দির ইউএনও

প্রকাশের সময় : ০৮:৪১:১১ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৪ ডিসেম্বর ২০১৯

জনতার আদালত অনলাইন ॥ চলছে শৈত্য প্রবাহ। জেঁকে বসেছে শীত। শীত নিবারণ করতে গিয়ে হিমশিম খাচ্ছে দুস্থ ও হতদরিদ্ররা। সোমবার রাত আটটার দিকে সেইসব দুস্থদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে কম্বল দিয়েছেন বালিয়াকান্দি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইশরাত জাহান।
বালিয়াকান্দি উপজেলার নবাবপুর ইউনিয়নের দিলালপুর আশ্রয়ন প্রকল্প ও বহরপুর ইউনিয়নের নিভৃত পল্লী রায়পুর গ্রামের শতাধিক দুস্থ পরিবারের বাড়ি বাড়ি গিয়ে বিতরণ করা হয় সরকারিভাবে প্রাপ্ত এসব কম্বল।
কম্বল পেয়ে হতদরিদ্র রাহেলা বেগম, আছিয়া খাতুনসহ জানান, শীতের কারণে সন্ধ্যায় ঘুমিয়ে পড়েছিলেন। রাত আটটার দিকে ঘরের বাইরে থেকে কে যেন ডাকছিল। উঠে দেখি কম্বল নিয়ে কয়েকজন হাজির। পরে জানতে পারেন ইউএনও কম্বল দিতে এসেছেন। কম্বল পেয়ে শীত নিবারণ করতে পারবো। তাদের মত গরিব মানুষের বাড়িতে কম্বল পৌছে দেওয়ার জন্য ধন্যবাদ জানান ইউএনওকে।
দিলালপুর আশ্রয়ন প্রকল্পের বাসিন্দারা জানান, আশ্রয়ন প্রকল্পটি ফাঁকা জায়গায় ও নদীর তীরে হওয়ার কারণে শীত একটু বেশি। শীতে খুব কষ্টে ছিে লন। কম্বল পেয়ে একটু হলেও শীত নিবারণ হবে।
বালিয়াকান্দি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইশরাত জাহান বলেন, প্রকৃত অর্থে দুস্থ ও হতদরিদ্ররা যাতে কম্বল পান সেজন্যই বাড়ি বাড়ি গিয়ে কম্বল বিতরণ করেছেন। এ ধারা অব্যাহত থাকবে বলে জানান তিনি।