Dhaka ০৯:০৭ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ৪ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বিয়ের দাবিতে প্রেমিকের বাড়িতে স্কুলছাত্রীর অনশন

সংবাদদাতা-
  • প্রকাশের সময় : ০৭:১৬:২৫ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৯
  • / ১৫৯৭ জন সংবাদটি পড়েছেন

জনতার আদালত অনলাইন ॥ রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলার দৌলতদিয়া ইউনিয়নের কিতাবদি মোল্লাপাড়া গ্রাম। ওই গ্রামের বাসিন্দা আব্দুর রাজ্জাক মোল্লার ছেলে সোহান মোল্লা (২০)। সে মাইক্রোবাসের একজন শিক্ষানবিশ চালক। একই উপজেলার উজানচর ইউনিয়নের তাঁরা মাতবরপাড়া গ্রামের স্কুলপড়–য়া এক কিশোরী স্থানীয় সাহাজদ্দিন মন্ডল ইন্স্টিটিউটের নবম শ্রেণির ছাত্রী। তিন মাস আগে ওই ছাত্রীর সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলে সোহান মোল্লা। পরে বিয়ে করার প্রলোভন দেখিয়ে সোহান ওই ছাত্রীর সঙ্গে গোপনে মেলামেশা শুরু করে। চুটিয়ে প্রেম করার এক পর্যায়ে প্রেমিক সোহান একদিন তার প্রেমিকাকে বিয়ে না করার কথা স্পষ্ট জানিয়ে দেয়। এতে দিশেহারা হয়ে পড়ে প্রেমিকা। উপায় না পেয়ে গত সোমবার সকালে ওই ছাত্রী তার বাবার বাড়ি ছেড়ে কিতাবদি মোল্লাপাড়া গ্রামে প্রেমিক সোহান মোল্লার বাড়িতে গিয়ে ওঠে। সেখানে উপস্থিত সোহান ওই ছাত্রীর সঙ্গে তার প্রেমের সম্পর্কের কথা ফের অস্বীকার করে। এ সময় উপায় না পেয়ে প্রেমিক সোহানের বসতঘরের ভিতরে বসে বিয়ের দাবিতে অনশন’ শুরু করে প্রেমিকা। এদিকে বিকেল গড়িয়ে সন্ধ্যা হয়ে আসে। এর মাঝে মেয়েটিকে নানা ভাবে বোঝানোর চেষ্টা চালায় অনেকেই। কিন্তু কারো কথা মেনে না নিয়ে সে তার নিজ দাবিপুরণে অটল থাকে। এমন পরিস্থিতিতে সোহানের বাবা রাজ্জাক মোল্লা নিজেই গোয়ালন্দ ঘাট থানাপুলিশে খবর দেয়। পরে ওই রাতেই কিতাবদি মোল্লাপাড়া গ্রামে অভিযান চালায় পুলিশ। এ সময় প্রেমিক সোহানের বসতঘরে আমরণ অনশনরত প্রেমিকা ওই স্কুলছাত্রীকে উদ্ধার করে তাকে থানায় নিয়ে যায় পুলিশ। পরদিন গতকাল মঙ্গলবার সকালে প্রেমিক সোহান মোল্লা, তার বাবা আব্দুর রাজ্জাক মোল্লাসহ ওই ছাত্রীর বাবাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়।
গোয়ালন্দ ঘাট থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. ইকবাল হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ‘বিয়ের দাবিতে প্রেমিকের বাড়িতে আমরণ অনশনরত অবস্থায় উদ্ধার ওই স্কুলছাত্রী অপ্রাপ্তবয়স্ক। বাল্যবিয়ে আইননিষিদ্ধ হওয়ায় ওই প্রেমিকযুগলসহ তাদের অভিভাকদেরকে ভ্রাম্যমাণ আদালতে পাঠানোর প্রক্রিয়া চলছে।’

Tag :

সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন-

বিয়ের দাবিতে প্রেমিকের বাড়িতে স্কুলছাত্রীর অনশন

প্রকাশের সময় : ০৭:১৬:২৫ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৯

জনতার আদালত অনলাইন ॥ রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলার দৌলতদিয়া ইউনিয়নের কিতাবদি মোল্লাপাড়া গ্রাম। ওই গ্রামের বাসিন্দা আব্দুর রাজ্জাক মোল্লার ছেলে সোহান মোল্লা (২০)। সে মাইক্রোবাসের একজন শিক্ষানবিশ চালক। একই উপজেলার উজানচর ইউনিয়নের তাঁরা মাতবরপাড়া গ্রামের স্কুলপড়–য়া এক কিশোরী স্থানীয় সাহাজদ্দিন মন্ডল ইন্স্টিটিউটের নবম শ্রেণির ছাত্রী। তিন মাস আগে ওই ছাত্রীর সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলে সোহান মোল্লা। পরে বিয়ে করার প্রলোভন দেখিয়ে সোহান ওই ছাত্রীর সঙ্গে গোপনে মেলামেশা শুরু করে। চুটিয়ে প্রেম করার এক পর্যায়ে প্রেমিক সোহান একদিন তার প্রেমিকাকে বিয়ে না করার কথা স্পষ্ট জানিয়ে দেয়। এতে দিশেহারা হয়ে পড়ে প্রেমিকা। উপায় না পেয়ে গত সোমবার সকালে ওই ছাত্রী তার বাবার বাড়ি ছেড়ে কিতাবদি মোল্লাপাড়া গ্রামে প্রেমিক সোহান মোল্লার বাড়িতে গিয়ে ওঠে। সেখানে উপস্থিত সোহান ওই ছাত্রীর সঙ্গে তার প্রেমের সম্পর্কের কথা ফের অস্বীকার করে। এ সময় উপায় না পেয়ে প্রেমিক সোহানের বসতঘরের ভিতরে বসে বিয়ের দাবিতে অনশন’ শুরু করে প্রেমিকা। এদিকে বিকেল গড়িয়ে সন্ধ্যা হয়ে আসে। এর মাঝে মেয়েটিকে নানা ভাবে বোঝানোর চেষ্টা চালায় অনেকেই। কিন্তু কারো কথা মেনে না নিয়ে সে তার নিজ দাবিপুরণে অটল থাকে। এমন পরিস্থিতিতে সোহানের বাবা রাজ্জাক মোল্লা নিজেই গোয়ালন্দ ঘাট থানাপুলিশে খবর দেয়। পরে ওই রাতেই কিতাবদি মোল্লাপাড়া গ্রামে অভিযান চালায় পুলিশ। এ সময় প্রেমিক সোহানের বসতঘরে আমরণ অনশনরত প্রেমিকা ওই স্কুলছাত্রীকে উদ্ধার করে তাকে থানায় নিয়ে যায় পুলিশ। পরদিন গতকাল মঙ্গলবার সকালে প্রেমিক সোহান মোল্লা, তার বাবা আব্দুর রাজ্জাক মোল্লাসহ ওই ছাত্রীর বাবাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়।
গোয়ালন্দ ঘাট থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. ইকবাল হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ‘বিয়ের দাবিতে প্রেমিকের বাড়িতে আমরণ অনশনরত অবস্থায় উদ্ধার ওই স্কুলছাত্রী অপ্রাপ্তবয়স্ক। বাল্যবিয়ে আইননিষিদ্ধ হওয়ায় ওই প্রেমিকযুগলসহ তাদের অভিভাকদেরকে ভ্রাম্যমাণ আদালতে পাঠানোর প্রক্রিয়া চলছে।’