Dhaka ০১:০৮ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১২ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

বালিয়াকান্দিতে যথাযথ নিয়ম না মেনে বিদ্যালয়ের গাছ কাটলেন ঠিকাদার!

সংবাদদাতা-
  • প্রকাশের সময় : ১১:০৩:১৫ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ৩ নভেম্বর ২০১৯
  • / ১৫৫৫ জন সংবাদটি পড়েছেন

জনতার আদালত অনলাইন ॥ রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি উপজেলার আড়কান্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় চত্ত্বর থেকে যথাযথ নিয়ম অনুসরণ না করেই গাছ কটেছেন ঠিকাদার। একটি মেহগনি গাছ ভেকু দিয়ে উপড়ে ফেলা হয়েছে। আরো দুটি বিশাল আকৃতির মেহগনি গাছের গোড়া কেটে ফেলা হয়েছে।
বিদ্যালয় সূত্র জানায়, আড়কান্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নতুন ভবন নির্মাণের কাজ চলছে গত এক মাস যাবৎ। ভবন নির্মাণের কাজ করছেন ঠিকাদার শহীদুল ইসলাম। ভবন নির্মাণের অজুহাতে বিদ্যালয় চত্ত্বর থেকে গাছ কাটা হয়েছে। গাছ কাটতে হলে বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির অনুমোদন, বন বিভাগের অনুমতি এবং সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের যথাযথ নির্দেশনা অনুসরণ করতে হয়। কিন্তু এক্ষেত্রে তার কোনোটিই করা হয়নি।
বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ভারতী রানী মৈত্র জানান, বৃহস্পতিবার ঠিকাদারের লোক এসে জানায়, ভবন নির্মাণের জন্য গাছ কাটতে হবে। ওই সময় যথাযথ নিয়ম মেনে গাছ কাটার জন্য বলেছিলাম। তারা আমার কথা উপেক্ষা করেই গাছ কেটেছে। বিষয়টি আমি তাৎক্ষণিক উপজেলা শিক্ষা অফিসসহ সংশ্লিষ্টদের অবগত করেছি। গাছ কাটার জন্য একটি রেজুলেশনও পাঠিয়েছি। তিনি আরও বলেন, আমি নিয়ম মেনে চলতে চাই। নিয়মের বাইরে গিয়ে কিছু করতে চাইনা।
বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি সুজিত কুমার সাহা বলেন, গাছ কীভাবে কার নির্দেশে কাটা হয়েছে তা আমি জানিনা। আমাকে কেউ কিছু জানায়নি।
ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের স্বত্বাধিকারী শহীদুল ইসলামের মোবাইল ফোনে কল দেয়া হলে কল রিসিভ করে প্রতিষ্ঠানের ম্যানেজার আতিয়ার রহমান বলেন, উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তার নির্দেশে গাছ কাটা হচ্ছে। বিল্ডিং নির্মাণের সুবিধার জন্য গাছগুলো কেটে রাখা হচ্ছে। পরে নিলাম করা হবে।
এব্যাপারে বালিয়াকান্দি উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা আশরাফুল ইসলামের মোবাইল ফোনে একাধিকবার কল দিলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি।
বালিয়াকান্দি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইশরাত জাহান বলেন, বিষয়টি আমার জানা নেই। খোঁজ নিয়ে দেখছি।

Tag :

সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন-

বালিয়াকান্দিতে যথাযথ নিয়ম না মেনে বিদ্যালয়ের গাছ কাটলেন ঠিকাদার!

প্রকাশের সময় : ১১:০৩:১৫ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ৩ নভেম্বর ২০১৯

জনতার আদালত অনলাইন ॥ রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি উপজেলার আড়কান্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় চত্ত্বর থেকে যথাযথ নিয়ম অনুসরণ না করেই গাছ কটেছেন ঠিকাদার। একটি মেহগনি গাছ ভেকু দিয়ে উপড়ে ফেলা হয়েছে। আরো দুটি বিশাল আকৃতির মেহগনি গাছের গোড়া কেটে ফেলা হয়েছে।
বিদ্যালয় সূত্র জানায়, আড়কান্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নতুন ভবন নির্মাণের কাজ চলছে গত এক মাস যাবৎ। ভবন নির্মাণের কাজ করছেন ঠিকাদার শহীদুল ইসলাম। ভবন নির্মাণের অজুহাতে বিদ্যালয় চত্ত্বর থেকে গাছ কাটা হয়েছে। গাছ কাটতে হলে বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির অনুমোদন, বন বিভাগের অনুমতি এবং সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের যথাযথ নির্দেশনা অনুসরণ করতে হয়। কিন্তু এক্ষেত্রে তার কোনোটিই করা হয়নি।
বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ভারতী রানী মৈত্র জানান, বৃহস্পতিবার ঠিকাদারের লোক এসে জানায়, ভবন নির্মাণের জন্য গাছ কাটতে হবে। ওই সময় যথাযথ নিয়ম মেনে গাছ কাটার জন্য বলেছিলাম। তারা আমার কথা উপেক্ষা করেই গাছ কেটেছে। বিষয়টি আমি তাৎক্ষণিক উপজেলা শিক্ষা অফিসসহ সংশ্লিষ্টদের অবগত করেছি। গাছ কাটার জন্য একটি রেজুলেশনও পাঠিয়েছি। তিনি আরও বলেন, আমি নিয়ম মেনে চলতে চাই। নিয়মের বাইরে গিয়ে কিছু করতে চাইনা।
বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি সুজিত কুমার সাহা বলেন, গাছ কীভাবে কার নির্দেশে কাটা হয়েছে তা আমি জানিনা। আমাকে কেউ কিছু জানায়নি।
ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের স্বত্বাধিকারী শহীদুল ইসলামের মোবাইল ফোনে কল দেয়া হলে কল রিসিভ করে প্রতিষ্ঠানের ম্যানেজার আতিয়ার রহমান বলেন, উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তার নির্দেশে গাছ কাটা হচ্ছে। বিল্ডিং নির্মাণের সুবিধার জন্য গাছগুলো কেটে রাখা হচ্ছে। পরে নিলাম করা হবে।
এব্যাপারে বালিয়াকান্দি উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা আশরাফুল ইসলামের মোবাইল ফোনে একাধিকবার কল দিলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি।
বালিয়াকান্দি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইশরাত জাহান বলেন, বিষয়টি আমার জানা নেই। খোঁজ নিয়ে দেখছি।