Dhaka 10:58 am, Sunday, 5 February 2023

রাজবাড়ীতে আলোকচিত্র শিল্পী নাসির আলী মামুনকে সম্মাননা

সংবাদদাতা-
  • প্রকাশের সময় : 07:18:07 pm, Saturday, 19 October 2019
  • / 1323 জন সংবাদটি পড়েছেন

জনতার আদালত অনলাইন ॥ আালোকচিত্রে বিশেষ অবদানের জন্য শিল্পী নাসির আলী মামুনকে সম্মাননা দিয়েছে রাজবাড়ী বুনন আর্ট স্পেস। শুক্রবার রাতে রাজবাড়ী শহরতলীর রায়নগর স্বর্ণশিমুল তলায় প্রতিষ্ঠানের নিজস্ব কার্যালয় চত্ত্বরের উন্মুক্ত মঞ্চে আনুষ্ঠানিকভাবে তার হাতে ক্রেস্ট তুলে দিয়ে এ সম্মাননা জানানো হয়।
এসময় নাসির আলী মামুন বুনন আর্ট স্পেসের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে তার আলোকচিত্র জীবনের শুরু এবং নানা চড়াই উৎরাই পেরিয়ে আসা বিভিন্ন ঘটনার কথা উল্লেখ করে বলেন, বাংলাদেশে যারা বিখ্যাত ফটোগ্রাফার তারা প্রকৃতি, ফুল, পাখি, নিসর্গ, নদী এসবের ছবি তোলেন। কিন্তু পোট্রেট ফটোগ্রাফি বাংলাদেশে কেউ জানেনা। আমি গৌরববোধ করতে পারি আমি এদেশের একজন পোট্রেট ফটোগ্রাফার। ১৯৭২ সালে আমি খুব মুমূর্ষু অবস্থার মধ্য দিয়ে ফটোগ্রাফি চর্চা শুরু করি। যারা সৃষ্টিশীল মানুষ তাদের ছবি তোলার জন্য তাদের বাড়িতে যাওয়া শুরু করলাম। এর মধ্যে কবি, লেখক, খেলোয়াড়, অভিনেতা, রাজনীতিবিদ, গায়ক রয়েছেন। আস্তে আস্তে বাংলাদেশের বিখ্যাত ও সৃষ্টিশীল মানুষের মুখচ্ছবির ইতিহাস রচনা শুরু করলাম। এখনও যা করে যাচ্ছি। এধরনের ছবি তোলা যতটা সহজ মনে করা হয় ততটা সহজ নয়। ফটোগ্রাফি একটি শিল্প। আমি এ শিল্পের সাথে যুক্ত থাকতে পেরে অত্যন্ত ধন্য মনে করি।
বুনন আর্ট স্পেসের স্বত্ত্বাধিকারী একুশে পদকপ্রাপ্ত চিত্রশিল্পী অধ্যাপক মনসুর উল করিমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সম্মাননা সভায় অন্যদের মাঝে বক্তৃতা করেন অধ্যাপক আলতাফ হোসেন, অধ্যক্ষ এটিএম রফিক উদ্দিন, রাজবাড়ীর নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রেজওয়ানা নাহিদ, লেখক ও গবেষক মফিজ ইমাম মিলন প্রমুখ।
পরে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

Tag :

সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন-

রাজবাড়ীতে আলোকচিত্র শিল্পী নাসির আলী মামুনকে সম্মাননা

প্রকাশের সময় : 07:18:07 pm, Saturday, 19 October 2019

জনতার আদালত অনলাইন ॥ আালোকচিত্রে বিশেষ অবদানের জন্য শিল্পী নাসির আলী মামুনকে সম্মাননা দিয়েছে রাজবাড়ী বুনন আর্ট স্পেস। শুক্রবার রাতে রাজবাড়ী শহরতলীর রায়নগর স্বর্ণশিমুল তলায় প্রতিষ্ঠানের নিজস্ব কার্যালয় চত্ত্বরের উন্মুক্ত মঞ্চে আনুষ্ঠানিকভাবে তার হাতে ক্রেস্ট তুলে দিয়ে এ সম্মাননা জানানো হয়।
এসময় নাসির আলী মামুন বুনন আর্ট স্পেসের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে তার আলোকচিত্র জীবনের শুরু এবং নানা চড়াই উৎরাই পেরিয়ে আসা বিভিন্ন ঘটনার কথা উল্লেখ করে বলেন, বাংলাদেশে যারা বিখ্যাত ফটোগ্রাফার তারা প্রকৃতি, ফুল, পাখি, নিসর্গ, নদী এসবের ছবি তোলেন। কিন্তু পোট্রেট ফটোগ্রাফি বাংলাদেশে কেউ জানেনা। আমি গৌরববোধ করতে পারি আমি এদেশের একজন পোট্রেট ফটোগ্রাফার। ১৯৭২ সালে আমি খুব মুমূর্ষু অবস্থার মধ্য দিয়ে ফটোগ্রাফি চর্চা শুরু করি। যারা সৃষ্টিশীল মানুষ তাদের ছবি তোলার জন্য তাদের বাড়িতে যাওয়া শুরু করলাম। এর মধ্যে কবি, লেখক, খেলোয়াড়, অভিনেতা, রাজনীতিবিদ, গায়ক রয়েছেন। আস্তে আস্তে বাংলাদেশের বিখ্যাত ও সৃষ্টিশীল মানুষের মুখচ্ছবির ইতিহাস রচনা শুরু করলাম। এখনও যা করে যাচ্ছি। এধরনের ছবি তোলা যতটা সহজ মনে করা হয় ততটা সহজ নয়। ফটোগ্রাফি একটি শিল্প। আমি এ শিল্পের সাথে যুক্ত থাকতে পেরে অত্যন্ত ধন্য মনে করি।
বুনন আর্ট স্পেসের স্বত্ত্বাধিকারী একুশে পদকপ্রাপ্ত চিত্রশিল্পী অধ্যাপক মনসুর উল করিমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সম্মাননা সভায় অন্যদের মাঝে বক্তৃতা করেন অধ্যাপক আলতাফ হোসেন, অধ্যক্ষ এটিএম রফিক উদ্দিন, রাজবাড়ীর নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রেজওয়ানা নাহিদ, লেখক ও গবেষক মফিজ ইমাম মিলন প্রমুখ।
পরে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।