Dhaka ০৮:২৫ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ৫ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

রাজবাড়ীতে মাদ্রাসাছাত্রকে বৈদ্যুতিক তার দিয়ে পেটালেন অধ্যক্ষ

সংবাদদাতা-
  • প্রকাশের সময় : ০৭:৫৩:১৯ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই ২০১৯
  • / ১৬৭৪ জন সংবাদটি পড়েছেন


জনতার আদালত অনলাইন ॥ রাজবাড়ী সদর উপজেলার শ্রীপুর লজ্জাতুননেছা কামিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মোহাম্মদ দিদারুল্লাহ একই প্রতিষ্ঠানের অষ্টম শ্রেণির ছাত্র মেহেদী হাসান শিমুলকে বৈদ্যুতিক তার দিয়ে পিটিয়ে জখম করেছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় ছাত্র শিমুলের মা শিউলি বেগম সোমবার বিকেলে রাজবাড়ী জেলা প্রশাসকের কাছে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। অভিযুক্ত অধ্যক্ষ বিষয়টি স্বীকার করে বলেছেন, এটি তার ভুল হয়েছে।
ছাত্র মেহেদী হাসান শিমুল শ্রীপুর বাস টার্মিনাল এলাকার প্রবাসী মো. লুৎফর রহমানের ছেলে।
আহত ছাত্র শিমুল জানায়, তার এক সহপাঠি দুপুরে পালানোর জন্য তার ব্যাগটি দোাতলা থেকে নিচে ফেলে দেয়। এসময় পেছন থেকে অধ্যক্ষ হুজুর এসে বৈদ্যুতিক তার দিয়ে পেটাতে শুরু করে।
শিমুলের মা শিউলি বেগম জানান, তার ছেলের হাতে, পিঠে, কাঁধে লম্বা লম্বা লাল ও কালচে দাগ পড়েছে এবং ব্যথায় অসুস্থ হয়ে পড়েছে। হাসপাতালের জরুরী বিভাগে নিয়ে তাকে চিকিৎসা করিয়েছেন। তিনি আরও জানান, অধ্যক্ষ দিদারুল্লাহ কয়েকদিন আগে কয়েকজন ছাত্রকে একই ভাবে তার দিয়ে পিটিয়ে রক্তাক্ত করেছিলেন।
রাজবাড়ীর জেলা প্রশাসক দিলসাদ বেগম অভিযোগ প্রাপ্তির বিষয়টি স্বীকার করে জানান, এঘটনায় রাজবাড়ীর অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি)কে তদন্তের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। তদন্ত শেষে ব্যবস্থা নেয়া হবে।
শ্রীপুর লজ্জাতুননেছা কামিল মাদরাসার অধ্যক্ষ মোহাম্মদ দিদারুল্লাহ বলেন, ছাত্রটি দোতলা থেকে নীচে ব্যাগ ফেলে পালানোর চেষ্টা করছিল। মাদ্রাসার নিয়ম শৃঙ্খলা ভঙ্গের জন্য তাকে সামান্য আঘাত করা হয়েছে। তবে এটি আমার ভুল হয়েছে।

Tag :

সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন-

রাজবাড়ীতে মাদ্রাসাছাত্রকে বৈদ্যুতিক তার দিয়ে পেটালেন অধ্যক্ষ

প্রকাশের সময় : ০৭:৫৩:১৯ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই ২০১৯


জনতার আদালত অনলাইন ॥ রাজবাড়ী সদর উপজেলার শ্রীপুর লজ্জাতুননেছা কামিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মোহাম্মদ দিদারুল্লাহ একই প্রতিষ্ঠানের অষ্টম শ্রেণির ছাত্র মেহেদী হাসান শিমুলকে বৈদ্যুতিক তার দিয়ে পিটিয়ে জখম করেছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় ছাত্র শিমুলের মা শিউলি বেগম সোমবার বিকেলে রাজবাড়ী জেলা প্রশাসকের কাছে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। অভিযুক্ত অধ্যক্ষ বিষয়টি স্বীকার করে বলেছেন, এটি তার ভুল হয়েছে।
ছাত্র মেহেদী হাসান শিমুল শ্রীপুর বাস টার্মিনাল এলাকার প্রবাসী মো. লুৎফর রহমানের ছেলে।
আহত ছাত্র শিমুল জানায়, তার এক সহপাঠি দুপুরে পালানোর জন্য তার ব্যাগটি দোাতলা থেকে নিচে ফেলে দেয়। এসময় পেছন থেকে অধ্যক্ষ হুজুর এসে বৈদ্যুতিক তার দিয়ে পেটাতে শুরু করে।
শিমুলের মা শিউলি বেগম জানান, তার ছেলের হাতে, পিঠে, কাঁধে লম্বা লম্বা লাল ও কালচে দাগ পড়েছে এবং ব্যথায় অসুস্থ হয়ে পড়েছে। হাসপাতালের জরুরী বিভাগে নিয়ে তাকে চিকিৎসা করিয়েছেন। তিনি আরও জানান, অধ্যক্ষ দিদারুল্লাহ কয়েকদিন আগে কয়েকজন ছাত্রকে একই ভাবে তার দিয়ে পিটিয়ে রক্তাক্ত করেছিলেন।
রাজবাড়ীর জেলা প্রশাসক দিলসাদ বেগম অভিযোগ প্রাপ্তির বিষয়টি স্বীকার করে জানান, এঘটনায় রাজবাড়ীর অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি)কে তদন্তের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। তদন্ত শেষে ব্যবস্থা নেয়া হবে।
শ্রীপুর লজ্জাতুননেছা কামিল মাদরাসার অধ্যক্ষ মোহাম্মদ দিদারুল্লাহ বলেন, ছাত্রটি দোতলা থেকে নীচে ব্যাগ ফেলে পালানোর চেষ্টা করছিল। মাদ্রাসার নিয়ম শৃঙ্খলা ভঙ্গের জন্য তাকে সামান্য আঘাত করা হয়েছে। তবে এটি আমার ভুল হয়েছে।