Dhaka ০৫:২৯ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২০ জুন ২০২৪, ৫ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

অপরিণত প্রেমে অন্তসত্বা স্কুলছাত্রী॥ সমাধান বাল্যবিয়ে!

সংবাদদাতা-
  • প্রকাশের সময় : ০৮:৩৪:৩৬ অপরাহ্ন, শনিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮
  • / ১৪৪৬ জন সংবাদটি পড়েছেন

জনতার আদালত অনলাইন ॥ রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি উপজেলা জঙ্গল ইউনিয়নের ঢোলজানি গ্রামে তিন মাসের অন্তসত্বা এক স্কুল ছাত্রীর শুক্রবার গ্রাম্য শালিসে বিয়ে দেওয়া হয়েছে। এ ঘটনায় এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।
এলাকাবাসী জানিয়েছেন, উপজেলার জঙ্গল ইউনিয়নের ঢোলজানি গ্রামের তারাপদর ছেলে রাজমিস্ত্রি আরাধন (১৬) সাথে পার্শ্ববর্তী ঢোলজানি শুকনা গ্রামের স্কুল পড়–য়া এক ছাত্রীর প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। তাদের অবৈধ মেলামেশার ফলে ওই ছাত্রী (১৩) ৩ মাসের অন্তসত্বা হয়ে পড়েছে। বিষয়টি নিয়ে বেশ কয়েকদিন ধরেই শালিস বসলেই মিমাংসা না পরে শুক্রবার রাতে ওই ছাত্রীর পিতার বাড়ীতে গোলক, নিশান, কমল, সঞ্জয়, জীবন, স্বপন, মনমতো, মন্টু, নজরুল, মিলন, মেহের আলী, আলম, শামীমসহ এলাকার মাতুব্বরদের উপস্থিতি এক শালিসে স্থানীয় মন্দিরে সিদুঁর পরিয়ে তাদের বিয়ে দেওয়া হয়। জঙ্গল আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় এন্ড কলেজের প্রভাষক পরিতোষ কুমার ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেন।

Tag :

সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন-

অপরিণত প্রেমে অন্তসত্বা স্কুলছাত্রী॥ সমাধান বাল্যবিয়ে!

প্রকাশের সময় : ০৮:৩৪:৩৬ অপরাহ্ন, শনিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮

জনতার আদালত অনলাইন ॥ রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি উপজেলা জঙ্গল ইউনিয়নের ঢোলজানি গ্রামে তিন মাসের অন্তসত্বা এক স্কুল ছাত্রীর শুক্রবার গ্রাম্য শালিসে বিয়ে দেওয়া হয়েছে। এ ঘটনায় এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।
এলাকাবাসী জানিয়েছেন, উপজেলার জঙ্গল ইউনিয়নের ঢোলজানি গ্রামের তারাপদর ছেলে রাজমিস্ত্রি আরাধন (১৬) সাথে পার্শ্ববর্তী ঢোলজানি শুকনা গ্রামের স্কুল পড়–য়া এক ছাত্রীর প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। তাদের অবৈধ মেলামেশার ফলে ওই ছাত্রী (১৩) ৩ মাসের অন্তসত্বা হয়ে পড়েছে। বিষয়টি নিয়ে বেশ কয়েকদিন ধরেই শালিস বসলেই মিমাংসা না পরে শুক্রবার রাতে ওই ছাত্রীর পিতার বাড়ীতে গোলক, নিশান, কমল, সঞ্জয়, জীবন, স্বপন, মনমতো, মন্টু, নজরুল, মিলন, মেহের আলী, আলম, শামীমসহ এলাকার মাতুব্বরদের উপস্থিতি এক শালিসে স্থানীয় মন্দিরে সিদুঁর পরিয়ে তাদের বিয়ে দেওয়া হয়। জঙ্গল আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় এন্ড কলেজের প্রভাষক পরিতোষ কুমার ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেন।