Dhaka 6:44 am, Tuesday, 29 November 2022

পাংশায় প্রেমের অপরাধে মোবাইলে ডেকে নিয়ে প্রেমিককে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ, বাবাÑছেলে আটক

সংবাদদাতা-
  • প্রকাশের সময় : 07:56:12 pm, Saturday, 17 March 2018
  • / 1405 জন সংবাদটি পড়েছেন

স্টাফ রিপোর্টার ॥ প্রেম করার অপরাধে মোবাইল ফোনে ডেকে নিয়ে প্রেমিক মিরাজুল শেখ (২৫)কে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে প্রেমিকার পরিবারের বিরুদ্ধে। শনিবার সকালে পাংশা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে পুলিশ মিরাজুলের মৃতদেহ উদ্ধার করে। এ ঘটনায় প্রেমিকার বাবা আজিজ মোল্লা ও ভাই জুবায়েরকে আটক করেছে। প্রেমিকা ও পরিবারের অন্য সদস্যরা ঘটনার পর থেকে গা ঢাকা দিয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে রাজবাড়ীর পাংশা উপজেলার মৌত্তিডাঙ্গা গ্রামে। প্রেমিকার পরিবারের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে; মিরাজুল চুরি করতে গিয়ে গণপিটুনিতে মারা গেছে। নিহত মিরাজুল একই গ্রামের খালেক শেখের ছেলে।
এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, মিরাজুল পেশায় একজন পরিবহন শ্রমিক। প্রায় এক বছর আগে একই গ্রামের মর্জিনার সাথে তার প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। মর্জিনা পাংশা বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের ছাত্রী। প্রেমের বিষয়টি মর্জিনার পরিবার কখনই ভালোভাবে নেয়নি। শুক্রবার রাতে মিরাজুলকে মোবাইল ফোনে ডেকে নিয়ে নির্যাতন করে মর্জিনার পরিবারের লোকেরা। এক পর্যায়ে মিরাজুল অচেতন হয়ে পড়লে রাত সাড়ে তিনটার দিকে তাকে পাংশা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পাঠানো হয়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক মিরাজুলকে মৃত ঘোষণা করেন।
নিহতের চাচা মজিবর রহমান জানান, মিরাজুলের সাথে মর্জিনার প্রেমের সম্পর্কের কথা জেনে তাকে কয়েকবার শাসন করা হয়েছিল। শুক্রবার রাত সাড়ে আটটার দিকে মর্জিনার পরিবারের কেউ ফোন করে মিরাজুলকে ডেকে নিয়ে ঘর বন্ধ করে অমানুষিক নির্যাতন করে। শনিবার সকালে জানতে পারেন পাংশা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে মিরাজুলের লাশ রয়েছে।
পাংশা থানার ওসি মোফাজ্জেল হোসেন জানান, শনিবার সকাল নয়টার দিকে মিরাজুলের লাশ উদ্ধার করা হয়।এ ঘটনায় মর্জিনার বাবা আজিজ মোল্লা ও তার ছেলে জুবায়েরকে আটক করা হয়েছে। নিহত মিরাজুলের বাবা খালেক শেখ বাদী হয়ে একটি মামলা করেছেন। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য রাজবাড়ী মর্গে পাঠানো হয়েছে। আজিজ মোল্লার পরিবারের পক্ষ থেকে অভিযোগ করেছে; ছেলেটি চুরি করতে গিয়ে গণপিটুনির শিকার হয়ে মারা গেছে। পুলিশ বিষয়টি তদন্ত করছে।

Tag :

সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন-

পাংশায় প্রেমের অপরাধে মোবাইলে ডেকে নিয়ে প্রেমিককে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ, বাবাÑছেলে আটক

প্রকাশের সময় : 07:56:12 pm, Saturday, 17 March 2018

স্টাফ রিপোর্টার ॥ প্রেম করার অপরাধে মোবাইল ফোনে ডেকে নিয়ে প্রেমিক মিরাজুল শেখ (২৫)কে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে প্রেমিকার পরিবারের বিরুদ্ধে। শনিবার সকালে পাংশা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে পুলিশ মিরাজুলের মৃতদেহ উদ্ধার করে। এ ঘটনায় প্রেমিকার বাবা আজিজ মোল্লা ও ভাই জুবায়েরকে আটক করেছে। প্রেমিকা ও পরিবারের অন্য সদস্যরা ঘটনার পর থেকে গা ঢাকা দিয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে রাজবাড়ীর পাংশা উপজেলার মৌত্তিডাঙ্গা গ্রামে। প্রেমিকার পরিবারের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে; মিরাজুল চুরি করতে গিয়ে গণপিটুনিতে মারা গেছে। নিহত মিরাজুল একই গ্রামের খালেক শেখের ছেলে।
এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, মিরাজুল পেশায় একজন পরিবহন শ্রমিক। প্রায় এক বছর আগে একই গ্রামের মর্জিনার সাথে তার প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। মর্জিনা পাংশা বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের ছাত্রী। প্রেমের বিষয়টি মর্জিনার পরিবার কখনই ভালোভাবে নেয়নি। শুক্রবার রাতে মিরাজুলকে মোবাইল ফোনে ডেকে নিয়ে নির্যাতন করে মর্জিনার পরিবারের লোকেরা। এক পর্যায়ে মিরাজুল অচেতন হয়ে পড়লে রাত সাড়ে তিনটার দিকে তাকে পাংশা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পাঠানো হয়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক মিরাজুলকে মৃত ঘোষণা করেন।
নিহতের চাচা মজিবর রহমান জানান, মিরাজুলের সাথে মর্জিনার প্রেমের সম্পর্কের কথা জেনে তাকে কয়েকবার শাসন করা হয়েছিল। শুক্রবার রাত সাড়ে আটটার দিকে মর্জিনার পরিবারের কেউ ফোন করে মিরাজুলকে ডেকে নিয়ে ঘর বন্ধ করে অমানুষিক নির্যাতন করে। শনিবার সকালে জানতে পারেন পাংশা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে মিরাজুলের লাশ রয়েছে।
পাংশা থানার ওসি মোফাজ্জেল হোসেন জানান, শনিবার সকাল নয়টার দিকে মিরাজুলের লাশ উদ্ধার করা হয়।এ ঘটনায় মর্জিনার বাবা আজিজ মোল্লা ও তার ছেলে জুবায়েরকে আটক করা হয়েছে। নিহত মিরাজুলের বাবা খালেক শেখ বাদী হয়ে একটি মামলা করেছেন। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য রাজবাড়ী মর্গে পাঠানো হয়েছে। আজিজ মোল্লার পরিবারের পক্ষ থেকে অভিযোগ করেছে; ছেলেটি চুরি করতে গিয়ে গণপিটুনির শিকার হয়ে মারা গেছে। পুলিশ বিষয়টি তদন্ত করছে।