বালিয়াকান্দিতে বীর মুক্তিযোদ্ধা ও প্রবাসির বাড়ীতে ডাকাতি

জনতার আদালত অনলাইন

রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দিতে বীর মুক্তিযোদ্ধা ও এক প্রবাসীর বাড়িতে ডাকাতির  ঘটনা ঘটেছে।  বুধবার দিবাগত রাতে উপজেলার নবাবপুর ইউনিয়নের পদমদী গ্রামে ডাকাতির শিকার হয়েছেন বালিয়াকান্দি উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক  কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মতিন ফেরদৌস ও তার মামা মঞ্জুরুল ইসলাম। তাদের বাড়ি থেকে ডাকাতরা নগদ টাকা ও স্বর্ণালংকার লুওেট নিয়েছে। এর আগে মঙ্গলবার রাতে একই ইউনিয়নের সোনাপুর গ্রামে ঘটে ডাকাতির ঘটনা।

বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মতিন ফেরদৌস জানান, রাত একটার দিকে একদল মুখোশধারী ডাকাত ঘরের দরজা ভেঙে ভেতরে ঢোকে। দরজা ভাঙার শব্দে ঘুম থেকে জেগে উঠে দেশীয় অস্ত্রশস্ত্রে সজ্জিত ডাকাতদের দেখতে পান। ওই দলের সদস্য ছিল আটজন। তিনি ডাকাতদের বলেন, তোমরা কোনো ক্ষতি করোনা। যা নেবার নিয়ে যাও। ডাকাতদল তার বাড়ি থেকে নগদ ৪০ হাজার টাকা ও ১০ ভরি স্বর্ণালংকার লুটে নিয়ে যায়। পরে তার বাড়ির পাশেই মামা মঞ্জুরুল ইসলামের বাড়িতে হানা দেয়। সেখান থেকেও নগদ টাকা ও স্বর্ণালংকার লুটে নেয়। ডাকাতদল মঞ্জুরুল ইসলামের ছেলে রুবেল ও তার বাড়িতে বেড়াতে আসা আব্দুল কুদ্দুসকে বেধরক মারপিট করে।

ডাকাতির খবর পেয়ে রাজবাড়ীর পুলিশ সুপার এমএম শাকিলুজ্জামান, পাংশা সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার সুমন কুমার সাহা, বালিয়াকান্দি থানার ওসি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

অন্যদিকে বালিয়াকান্দি উপজেলার নবাবপুর ইউনিয়নের সোনাপুর গ্রামের মোকলেসুর রহমানের ছেলে ও সিঙ্গাপুর প্রবাসী মিজানুর রহমান মিয়া এবং খোকন মিয়ার বাড়ীতে গত মঙ্গলবার রাত ২টার দিকে ১২/১৩ জনের একদল মুখোশ পরিহিত ডাকাত আগ্নেয়াস্ত্র ও ধারালো অস্ত্র নিয়ে প্রবেশ করে। তারা কয়েকমাস আগে সিঙ্গাপুর থেকে বাড়ীতে ফিরে আসা খোকন মিয়ার শিশু মেয়েকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে এবং খোকন ও ভাতিজাকে বেঁধে মারপিটও করে। এক পর্যায়ে তারা খোকনের স্ত্রীর কাছ থেকে আলমারির চাবি নিয়ে সেখানে থাকা নগদ ৩৮ হাজার টাকা ও ৫/৬ ভরি স্বার্ণালংকার নিয়ে যায়।

ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আবুল হোসেন আলী বলেন, খবর পেয়ে বালিয়াকান্দি থানা পুলিশের পাশাপাশি (৩ আগস্ট) বুধবার সকালে তিনিও ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

ওসি আসাদুজ্জামান জানান, ঘটনার সাথে জড়িতদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

Print Friendly, PDF & Email

     একই ধরনের আরও কিছু খবর....