চামড়া নিয়ে বিপাকে ব্যবসায়ীরা

জনতার আদালত অনলাইন ॥  সময় মতো চামড়া বিক্রি করতে না পেরে বিপাকে পড়েছেন রাজবাড়ীর ব্যবসায়ীরা। ঢাকার ব্যবসায়ীরা চামড়া কেনার আগ্রহ না দেখানোয় তারা পড়েছেন দুশ্চিন্তায়। কোরবানীর ঈদের পর যে টাকা বিনিয়োগ করে চামড়া কিনেছিলেন আগামী ১৫ দিনের মধ্যে বিক্রি করতে না পারলে সমূহ ক্ষতির মুখে পড়তে হবে।

জানা গেছে, রাজবাড়ী বাজারে চামড়া ব্যবসায়ী রয়েছেন ১০ জনের মতো। যারা প্রতি বছর কোরবানির ঈদের সময় চামড়া কিনে লবণ দিয়ে সংরক্ষণ করেন। পরে ঢাকা, কুষ্টিয়াসহ দেশের বিভিন্ন জেলায় রপ্তানি করে থাকেন।

রাজবাড়ী বাজারের চামড়া ব্যাবসায়ী সিরাজুল ইসলাম জানান, আত্মীয় স্বজন ও পরিচিত জনদের কাছ থেকে টাকা ধার করে গত কোরবানি ঈদে চামড়া কিনেছিলেন। প্রায় ছয় লাখ টাকা বিনিয়োগ করে চামড়া ক্রয় করেছেন। কিন্তু এখনো একটা চামড়াও বিক্রি করতে পারেননি। ঈদের ১৫ দিন হয়ে গেছে আর ১৫ দিন পার হলেই চামড়া গুলো নষ্ট হয়ে যাবে।

আরেক চামড়া ব্যাবসায়ী বিপ্লব  মিয়াও জানালেন একই কথা। তিনি জানান, চামড়ায় তিনি বিনিয়োগ করেছেন আট লাখ টাকা। ক্রয় করা চামড়া লবণ দিয়ে সংরক্ষণ করে রাখা হয়েছে। সময়মতো বিক্রি করতে না পারলে পুরো টাকাই পানিতে যাবে। এখন পর্যন্ত কেউ এসে চামড়া কেনার আগ্রহ দেখায়নি। এজন্য খুব দুশ্চিন্তায় আছেন তিনি।

চামড়া ব্যবসায়ীরা জানান, প্রতি ফুট চামড়ায় খরচ পড়েছে ২৫ থেকে ৩০ টাকা। চামড়া বিক্রির জন্য রাজবাড়ী থেকে সরাসরি কোনো এজেন্ট নেই। কুষ্টিয়াতেই তারা চামড়া বেশি বিক্রি করেন।  একেবারে শেষ মুহূর্তে ট্যানারীর এজেন্টরা এসে দরদাম করে। তখন আর্থিক ক্ষতি হলেও বিক্রি করে দিতে  হয়।

রাজবাড়ীর জেলা প্রশাসক দিলসাদ বেগল জানান, চামড়া একটি জাতীয় সম্পদ। চামড়া যেন নষ্ট না হয় সে ব্যাপারে  আমি খোঁজ খবর রাখবো। প্রয়োজনে চামড়া ব্যবসায়ীদের সাথে কথা বলবো।

Print Friendly, PDF & Email

     একই ধরনের আরও কিছু খবর....

Top Posts & Pages

রাজবাড়ীতে আওয়মী লীগের বর্ধিত সভা
রাজবাড়ীতে বিদুৎ স্পর্শে ইলেকট্রিক মিস্ত্রির মৃত্যু
প্রেমের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করায় ছাত্রীর শ্লীলতাহানি, যুবক গ্রেপ্তার
ইউএনও পরিচয়ে ব্যবসায়ীর দুটি দামি মোবাইল সেট নিয়ে চম্পট প্রতারক
বালিয়াকান্দিতে পাওনা টাকা চাওয়ায় দোকানিকে মারধর